ল্যাপটপ ব্যবহারে কিছু টিপস সবাই জেনে রাখুন

আমরা অনেকেই ল্যাপটপ কম্পিউটার ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু ল্যাপটপ ব্যবহারে কিছু নিয়ম মেনে চললে আমাদের ল্যাপটপ দীর্ঘদিন সার্ভিস দিতে পারবে। সে জন্য আমাদের ল্যাপটপ ব্যবহারে কিছু টিপস জানা থাকা জরুরী। আজকে ল্যাপটপ ব্যবহারের জরুরী কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করছি। তাহলে চলূন শূরু করা যাক। 

১। ব্যাটারিতে ল্যাপটপ চালানোর সময় স্ক্রিনের ব্রাইটনেস কমিয়ে রাখুন।

২। সরারসি সূর্যের আলোতে ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন না। কারণ এতে আপনার ল্যাপটপ খুব দ্রুত গরম হতে পারে এবং যে কোনো ধরনের ক্ষতি হতে পারে।

৩।  আপনার ল্যাপটপের প্রসেসরের উপর চাপ কমাতে অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রামগুলো বন্ধ করে দিন। যার ফলে ল্যাপটপ ভালো থাকবে।

৪। ব্যাটারির ক্যানেক্টরের লাইন নিয়মিত পরিষ্কার করুন।

৫। আপনি সব সময় আপনার ল্যাপটপের হার্ডডিস্ক থেকে মুভি এবং গান চালাবেন না। কারণ এর ফলে ল্যাপটপের সিডি/ডিভিডি রমের ক্ষমতা কম হয়ে থাকে।

৬। হার্ডডিস্ক এবং সিপিইউ এর মেইনটেইন্স এর সময় আপনার কোন কাজ করা উচিত হবে না।

৭। আপনার ল্যাপটপে আপনি যদি ব্যাটারি যদি কম ব্যবহার করেন বা একেবারেই ব্যবহার না করেন তাহল এর আয়ূ কমে যায়। এই সমস্যা থেকে রেহায় পেতে চাইলে সপ্তাহে ২ থেকে ৩ দিন ল্যাপটপ চালানোর চেষ্টা করুন।

৮। কম্পিউটার দ্রুত গতির জন্য সপ্তাহে অন্তত একবার হার্ডডিস্ক ডিফ্রাগমেন্ট করুন।

৯। আপনি আপনার কম্পিউটারে ব্যবহার করেন না এমন অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম আনইনস্টল করুন। তাহলে কম্পিউটার দ্রুত কাজ করবে।

১০। ল্যাপটপের রিমুভাল ড্রাইভ ( পেনড্রাইভ, মেমোরি কার্ড, হার্ডডিস্ক ইত্যাদি) দিয়ে তথ্য আদান প্রদানের সময়ে ল্যাপটপ সবচেয়ে বেশি ভাইরাসে আক্রান্ত হয়। তাই এসব ড্রাইভ ল্যাপটপে প্রবেশ করালে অব্যশ্যই অ্যান্টিভাইরাস দিয়ে আপনি স্ক্যান করে নিবেন।

১১। ল্যাপটপে অ্যান্টিভাইরাস দেবার পর আপনি নিয়মিত ইন্টারনেট থেকে আপডেট করে নিবেন্ ।

১২। রিমুভাল ডিস্ক আপনি কখনো ফোল্ডারের মতো দুই ক্লিকে খুলবেন না, এতে আপনার কম্পিউটারে ভাইরাস ছড়াতে পারে। তাই সব সময় ডান ক্লিক করে Open অপশন ক্লিক করে খুলবেন।

১৩।  রিমুভাল ডিস্ক ( পেনড্রাইভ) কম্পিউটার থেকে টান দিয়ে খুলবেন না। রিমুভ Hardware থেকে রিমুভ করে তারপর বের করবেন।

১৪। আমরা অনেক সময় মনে করি যে, ভাইরাস থেকে মুক্তি পেতে হলে দু তিনটি অ্যান্টিভাইরাস ইন্সটল করে রাখলে হয়ত ভাইরাস থেকে রক্ষা পাবো কিন্তু আসলে এটা ভুল ধারণা। একটির বেশি অ্যান্টিভাইরাস ইন্সটল করা থাকলে এতে কম্পিউটার ধীর গতির হয়ে থাকে।

১৫। আপনি আপনার কম্পিউটারে  অযথা প্রোগ্রাম ইন্সটল করা থেকে বিরত থাকুন। খেয়াল রাখবেন প্রোগ্রামের সাথে ভাইরাস আপনার কম্পিউটারে প্রবেশ করতে পারে।

১৬। খেয়াল রাখবেন যেসব কম্পিউটার সার্ভারে যুক্ত থাকে এসব কম্পিউটারে সব ধরনের কাজ করবেন না, তাহলে ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন।
১৭। প্রয়োজনে আপনি একটি ভালো লাইসেন্সপ্রাপ্ত অ্যান্টিভাইরাস ইন্সটল করে নিবেন এবং নিয়মিত নেট সংযোগ দিয়ে হালনাগাদ করে নিবেন। আপনার ল্যাপটপে অটো আপডেট সুবিধা এনাবল সক্রিয় করে রাখবেন।

১৮। ইন্টারনেটে সব ধরনের সাইটে প্রবেশ না করায় ভালো।

১৯। আপনার ল্যাপটপ চালানোর সময় খাবার এবং চা পানি ল্যাপটপের সামনে না খাবেন না।

২০। বৈদ্যুতিক সকেট বা ক্যাবল লুজ আছে কিনা নিয়মিত চেক করুন কারণ লুজ কানেকশনের কারনে ল্যাপটপের ক্ষতি হতে পারে।

আশা করি উপরের টিপসগুলি খেয়াল রেখে ল্যাপটপ ব্যবহার করলে আপনার ল্যাপটপ দীর্ঘায়ু হবে বলে আমি মনে করি। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top