স্মার্টফোনে যেসব অ্যাপ রাখবেন না

গুগল প্লে-স্টোরে লুকিয়ে আছে কিছু ক্ষতিকারক অ্যাপ। গুগলের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা সত্ত্বেও এসব অ্যাপ বিভিন্নভাবে গুগল প্লে স্টোরে জায়গা করে নেয়। সম্প্রতি নিরাপত্তা সংস্থা ইএসইটি জানায়, অফিসিয়াল অ্যান্ড্রয়েড স্টোরে বেশ কয়েকটি ক্ষতিকারক অ্যাপ্লিকেশন তালিকাভুক্ত আছে।

এরমধ্যে বেশ কয়েকটি অ্যাপ মোবাইল ব্যাংকিংয়ের ভাইরাস হিসেবে লুকিয়ে আছে।এই বছরের শুরুর দিকে সিমেন্টেক ও চেক পয়েন্টের মতো নিরাপত্তা সংস্থার গবেষকরা গুগল প্লে-স্টোরে লুকানো ম্যালওয়্যার সম্পর্কে সতর্ক করে দিয়েছিলেন।

এ ধরনের অ্যাপ্লিকেশনগুলো সাধারণত ডিভাইস বুস্টার, ক্লিনার্স, ব্যাটারি ম্যানেজারস এমনকি হরোস্কোপ-থিমযুক্ত অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে লুকিয়ে থাকে। এছাড়া গেম, এডুকেশন বা ক্রিপ্টোকারেন্সিসহ মার্কেটিংয়ের অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যেও এসব ক্ষতিকারক অ্যাপ থাকতে পারে।অ্যাপ্লিকেশনগুলোর মধ্যে কয়েকটি অ্যাপ্লিকেশন গ্রাহককে বাধ্য করে তাদের অ্যাপ ইনস্টলের জন্য।

কোনও ব্যবহারকারী প্লে-স্টোরে ঢোকামাত্রই কাজটি করে তারা। আবার কিছু অ্যাপ আছে যা দেখতে উপকারী মনে হলেও স্মার্টফোনকে ক্ষতি করছে। এরকম কিছু অ্যাপ সম্পর্কে জেনে নিন এবং এখনই আপনার স্মার্টফোন থেকে ডিলিট করুন।

মাস্টার ক্লিনার- সিপিউ বুস্টার

স্মার্টফোনের গতি ঠিক রাখতে মাস্টার ক্লিনার ব্যবহার করেন অনেকে। এটা ব্যবহারকারীদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয়তাও পেয়েছে। তবে অ্যাপটি স্মার্টফোনের জন্য অনেক ক্ষতির কারণ হতে পারে। এটি স্মার্টফোনে না রাখাই ভালো।

পারসোনাল হরোস্কোপ

প্রতিদিন হরোস্কোপ দেখার জন্য অনেকে অ্যাপটি ব্যবহার করেন। কিন্তু এটি স্মার্টফোনের গতি অনেকটাই কমিয়ে দেয়।কালারিং বুকস ফর কিডস: স্মার্টফোনের কল্যাণে আজকাল শিশুরা ফোনেই রঙ করা শিখতে পারছে। কিন্তু এসব অ্যাপ ইনস্টল করলে স্মার্টফোনের ব্যাটারির অনেক ক্ষতি হয়।

অ্যাপ-লক প্রাইভেসি প্রটেক্টর

ফোনের প্রাইভেসি বাড়ানোর জন্য অনেকের মধ্যেই এসব অ্যাপ ব্যবহার করার প্রবণতা দেখা যায়। কিন্তু এগুলো হতে পারে স্মার্টফোনের র‍্যামের জন্য অনেক সময় ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

কলিং ফ্রি কলস অ্যান্ড ম্যাসেজেস টু এনি কান্ট্রি

ইন্টারনেট ব্যবহার করে বিভিন্ন দেশে ফোন দেওয়ার জন্য প্লে-স্টোরে আছে নানা ধরনের অ্যাপস। এগুলো স্মার্টফোনের গতি কমিয়ে দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top